অনলাইন থেকে কি ইনকাম করা যায়? পার্ট-২

0
9

আসলেই কি অনলাইন থেকে  ইনকাম করা যায়?

আজ আপনাদের সাথে আমি আলোচনা করবো কিভাবে অনলাইনে আয় করতে পারবেন?

অনলাইনে আয় করার ইচ্ছা কম বেশি সবার মাঝেই আছে।আমরা জানিনা কিভাবে অনলাইনে আয় করতে হয়?

একটু সময় নিয়ে পড়ুন আশা করি অনলাইন থেকে আয় এর ব্যাপার টা আপনাদের পরিষ্কার হয়ে যাবে। অনলাইনে আয়. চলুন তাহলে শুরু করা যাক

অনলাইনে নতুন যারা তারা অনেকেই জিজ্ঞেস করেন, আসলেই কি অনলাইন থেকেআয় করা যায়?
প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে, হ্যাঁ। তবে শুনতে যতটা সহজ মনে হয় ইনকাম করা আসলে অত সহজ কাজ নয়।
তবে একদম অসম্ভব ও নয়। এর জন্য প্রথমেই আপনার যা লাগবে তা হচ্ছে দক্ষতা। আপনি যেই কাজটি করে আয় করতে চাচ্ছেন সেই কাজটিতে আপনার দক্ষ হতে হবে তাহলে আপনি ইনকাম করতে পারবেন।
আপনার সব কাজ জানার দরকার নেই, ভালভাবে যে কোন একটি কাজ শিখুন,তারপর সেই কাজের উপর আপনার দক্ষতা বাড়ান তাহলেই আপনি সহজে আয় করতে পারবেন।
দক্ষতার পর যে জিনিসটি লাগবে তা হচ্ছে আপনার ধৈর্য। যারা অনলাইনে আয় করতে ব্যার্থ হয় তাদের
এই ব্যার্থতার মূল কারন হচ্ছে ধৈর্য না থাকা। আপনি যদি দক্ষ হন তাহলে ধৈর্য ধরে কাজ করে গেলে এক সময় অবশ্যই সফল হবেন।

অনলাইনে ইনকাম করার উপায়সমূহ

  1. ওয়েব ডেভেলপিং
  2. এসইও
  3. এফিলিয়েট মার্কেটিং
  4. আর্টিকেল রাইটিং
  5. প্রোডাক্ট সেলিং

 

ওয়েব ডেভেলপিংঃ

একটি ওয়েবসাইটে কখন কখন বিভিন্ন ধরনের কাজ করা হয়ে  থাকে। যেমন রেজিষ্টেশন করা, ওর্ডার করা, নতুন তথ্য আপডেট করা। এই ধরনের কাজ গুল করার জন্য বিভিন্ন সার্ভার সাইড স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

আপনি যদি নিজেকে একজন ওয়েব ডেভেলপার হিসাবে তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে

অবশ্যই নির্দিষ্ট ধাপে বিভিন্ন ল্যাঙ্গুয়েজ শিখতে হবে।ভাল একজন ওয়েব ডেভেলপার হতে পারলে বেশ ভাল ইনকাম করা যায়।

এসইওঃ
এসইও (SEO) মানে হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। এসইও এর কাজ হচ্ছে এক কথায় ওয়েবসাইট/ভিডিও র‍্যাংক করানো। আমরা গুগল অথবা ইউটিউবে অথবা যে কোন সার্চ ইঞ্জিন এ কিছু সার্চ করলে একটা পেজ এ

অনেক গুলো ওয়েবসাইট এর লিংক আসে। এ রকম এক টপিকের হাজার হাজার ওয়েবসাইট

আছে কিন্তু আপনি শুধু প্রথম ২/৩ টা সাইট অথবা ভিডিও দেখেন। তো এই প্রথম পেজে / প্রথম অবস্থানে

ওয়েবসাইট/ভিডিও আনার কাজটাই হল এসইও। বর্তমানে এসইওর চাহিদা অনেক।

চাইলে আপনি এটি দিয়েও আপনার অনলাইন ইনকাম শুরু করতে পারেন।

 

 

এফিলিয়েট মার্কেটিংঃ
এফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে কোন একটা মার্কেটপ্লেস (ক্লিকব্যাংক, শেয়ারএসেল, এমাজন) থেকে প্রোডাক্ট নিয়ে, মার্কেটিং করে প্রোডাক্ট সেল করবেন তার বিনিময়ে আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন পাবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে বাংলাদেশ থেকে অনেকেই মান্থলি লাখ টাকার উপরে ইনকাম করছে।

 

আর্টিকেল রাইটিংঃ
ইন্টারনেট থেকে ইনকাম করার একটি স্মার্ট ওয়ে হচ্ছে আর্টিকেল রাইটিং।

বিশেষ করে স্টুডেন্টদের জন্য এটা খুবই পারফেক্ট। এটা চাইলে পড়াশুনার ফাঁকে ফাঁকে করা যাবে, তবে অন্য কাজগুলাও পড়াশুনার পাশাপাশি করা যাবে। কিন্তু আর্টিকেল রাইটিংটা আপনার পড়াশুনার কোন ক্ষতি করবে বলে মনে হয় না। বাংলাদেশ এ এখন আর্টিকেল রাইটারদের অনেক চাহিদা কিন্তু সেই অনুযায়ী তেমন কোয়ালিটিফুল আর্টিকেল রাইটার নেই।

তাই আপনি চাইলেই এটা দিয়ে আপনার ইনকাম শুরু করতে পারেন।

তবে বলে রাখা ভাল এ জন্য আপনাকে ইংলিশ এ খুব ভাল হতে হবে।

 

প্রোডাক্ট সেলিংঃ
আপনি অনলাইনে আপনার প্রোডাক্ট সেল করেও ইনকাম করতে পারেন। আপনার যে প্রোডাক্ট আছে সেই প্রোডাক্ট এর উপরে ভিত্তি করে একটি ওয়েবসাইট/ফেসবুক পেজ ওপেন করে আপনার প্রোডাক্ট এর প্রচারণা চালাবেন। তারপর সেখান থেকে বিক্রি হলে আপনার ইনকাম হবে। আপনি চাইলে অন্য কারো কারো প্রোডাক্ট কমিশন এর ভিত্তিতে সেল করে দিতে পারেন।

LEAVE A REPLY