চুলের আগা ফাটা রোধের প্রাকৃতিক উপায়ে চিরতরে বিদায় দিন

0
14

চুলের আগা ফাটা রোধের প্রাকৃতিক উপায়ে চিরতরে বিদায় দিন

চুল দুর্বল হয়ে গেলে চুলের আগা ফেটে দুই-ভাগে বিভক্ত হয় বলে একে চুলের আগা ফাটা বলে। এ চুলের আগা ফাটা রোধের প্রতিকার হিসাবে দই-পেঁপে এবং ডিমের কুসুমের মাস্ক বা ক্রিম সবচেয়ে বেশি কার্যকারী। এই মাস্ক ব্যবহারের ফলে দুর্বল, নিস্তেজ ও প্রাণহীন চুল বা আগা ফাটা প্রতিরোধ করে চুলের সৌন্দর্য্য বহুগুণ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

চুলের আগা ফাটা রোধের উপায়ঃ

নিম্নোক্ত তৈরিকৃত মাস্ক ব্যবহার করার পূর্বে চুলের আগা কেঁচি দিয়ে ছেটে নিন। এর ফলে চুলের আগা ফাটা অনেকাংশে কমে আসবে। এই চুলের আগা ছাটা পদ্ধতিটি চুলের আগা ফাটা রোধে খুবই কার্যকারী প্রতিকার। এভাবে চলমান প্রক্রিয়ায় ৬/৮ সপ্তাহ পর পর চুলের আগা কেঁটি দিয়ে ছেটে ফেলুন। আপনি চুলের আগা ফাটা প্রতিকারের জন্য নিচের তৈরিকৃত মাস্ক ব্যবহার বিধি অনুসরণ করুন।

(ক) দই ও পেঁপের তৈরিকৃত মাস্কঃ

দই চুলের জন্য খুবই উপকারী একটি উপাদান। এই দই চুলকে কোমল ও সিল্কি করে চুলের সৌন্দর্য্যকে বহুগুণে বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। আর পেঁপেতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, এ, কে, ই, খনিজ এবং এনজাইম উপাদান বিদ্যমান রয়েছে। এসব উপাদান ক্ষতিগ্রস্থ চুলকে মেরামত করে চুলের সৌন্দর্য্যকে রক্ষা করে। এজন্য হেয়ার কেয়ার প্রোডাক্টে পেঁপের ব্যবহার করা হয়ে থাকে। শুষ্ক, ক্ষতিগ্রস্থ ও নিস্তেজ চুলকে কোমল, শক্তিশালী এবং উজ্জ্বল করতে পেঁপে ব্যবহারের বিকল্প নেই। চুলের আগা ফাটা রোধ করতে সবচেয়ে ভালো কার্যকারী ভূমিকা পালন করে দই ও পেঁপে মিশ্রিত মাস্ক। এই দই ও পেঁপের মাস্ক তৈরি করার জন্য প্রথমে আপনি একটি পাকা পেঁপে এর অর্ধেক নিয়ে খোসা ও বীচিগুলো ফেলে দিয়ে ভালো করে চটকে নিন। এই চটকানো পেঁপে এর সাথে আধা কাপ দই নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করুন।

মাস্ক ব্যবহার বিধিঃ

দই ও পেঁপের তৈরিকৃত মাস্ক চুলে ও মাথার তালুতে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। তোয়াল বা

শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে ভালো করে মাথাটি ঢেকে রাখুন। এভাবে ৩০ মিনিট রাখার পর হারবাল বা যেকোন শ্যাম্পু দিয়ে ধৌঁত করুন। এই মাস্ক ক্ষতিগ্রস্থ চুলকে পরিপূর্ণ পুষ্টি দান করে চুলের আগা ফাটা রোধ করে চুলের সৌন্দর্য্যকে বহুগুণে বৃদ্ধি করে।

(খ) ডিমের কুসুমের তৈরিকৃত মাস্কঃ

চুলের যেকোন প্রকার সমস্যা সমাধানের জন্য আমিষ ও লেসিথিন অপরিহার্য। আর এই আমিষ ও লেসিথিন এর উৎস হচ্ছে ডিম। এছাড়াও ডিমে রয়েছে ফ্যাটিক এসিড এবং ভিটামিন যা চুলের আগা ফাটা দূর করতে সবচেয়ে কার্যকারী। ডিমের কুসুমের মাস্ক তৈরি করার জন্য দুইটি ডিম নিন এবং ডিম থেকে কুসুম আলাদা করে চটকে নিন। যতক্ষণ না পর্যন্ত মাস্ক বা ক্রিমের মতো না হয় ততক্ষণ পর্যন্ত চটকাতে থাকুন। এই চটকানো ক্রিমের সাথে ২ চা-চামচ অলিভ অয়েল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে মাস্কটি তৈরি করুন।

মাস্ক ব্যবহার বিধিঃ

এই তৈরিকৃত মাস্ক চুলে ও মাথার তালুতে ভালোভাবে লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর্যন্ত এভাবে রাখুন। তারপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালো করে ধুঁয়ে ফেলুন। আপনি ভালো ফলাফলের জন্য সপ্তাহে ৩ দিন ব্যবহার করুন। এই পদ্ধতিটি চুলের আগা ফাটা রোধ করার জন্য সবচেয়ে কার্যকারী প্রতিকার হিসাবে বিবেচ্য।

 

LEAVE A REPLY