অনলাইনে income বিষয়ক কিছু ভুল ধারনা

0
5

অনলাইনে আয় বিষয়ক কিছু ভুল ধারনা

যারা অনলাইনে নতুন তারা অনলাইনে আয় করার পদ্ধতিগুলো খুজে বেড়ান।বিভিন্ন ব্লোগ,ওয়েবসাইটে বিভিন্ন পদ্ধতি সম্পর্কে খোজ পান।তারপর এক বা একাধিক পদ্ধতি ব্যবহার করে উপার্জন করার চেষ্টা করেন।যেহুতো তারা নতুন তাই তাদের ভিতরে কিছু ধারনা থাকে যা ভুল,কেউ কেউ লোভের বশবতী হয়ে ভুল পথে পা বাড়ান এবং ফল হিসাবে মুল্যবান সময় অপচয় করেন।কেউ কেউ সাফল্য না পেয়ে চিন্তা করেন এ পথে থাকাটা কি ঠিক না ভুল?নাকি এসব বাদ দিয়ে প্রচলিত চাকরি বা ব্যবসা করব।প্রকৃত পক্ষে কিছু ব্যাপার আগে থেকে জানা থাকলে ভুলের পরিমান অনেকটাই কমে যায় এবং সাফল্য পাওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যায়।
তাহলে আসুন দেখি নতুনরা কোন ধরনের ভুল সবচেয়ে বেশী করে যা থেকে বিরত থাকা ভাল।

সহজে অর্থ উপার্জন:

  • যারা নতুন তারা প্রথমে ইন্টারনেটে ছুটাছুটি করে থাকে সহজে কিভাবে

করা যায় এসব পদ্ধতি খুজে বেড়াতে।এটা স্বাভাবিক কারন তারা নতুন।কিন্তু

সহজে ইনকাম বিষয়ক তথ্য খুজতে গিয়ে তারা অনেকেই বিভিন্ন ধরনের ভুয়া পিটিসি সাইটের সন্ধান পায়।

যেগুলো সাইটে বলা হয়ে থাকে প্রতি ক্লিক ২ ডলার/প্রতিক্লিক ৪ডলার কিংবা আরো বেশী।

মনে রাখা উচিত সত্যিকারের PTC সাইট খুবই কম দেয়।এতই কম দেয় যে,সাধারনত নেট বিল তোলা সম্ভব নাও হতে পারে।

তাই পিটিসির ক্ষেত্রে যে সাইটগুলিতে বেশী পাওয়ার কথা বলে বুঝতে হবে সেগুলো ভুয়া,সেদিকে পা বাড়ান যাবে না।

অনলাইনে উপার্জন হয়ত সবার জন্য নয়:

  • অনেকে সাফল্য না পেয়ে মনে করেন-আমার জন্য হয়ত অনলাইনে ইনকাম করা সম্ভব নয়।এটি ভুল ধারনা।
  • অনলাইনে সবচেয়ে সহজ ডাটা এন্ট্রি থেকে শুরু করে প্রোগ্রামিং এর মত কঠিন কাজও রয়েছে।
  • আপনি অবশ্যই এর ভিতরেই পড়েন।তাহলে আপনি কেন কাজ পাবেন না।
  • ধৈর্য ধরে ভাবতে থাকুন আপনার জন্য কোন কাজটি মানানসই।কাজ যেহুতো অনলাইনে এর সমাধানও পাবেন অনলাইনে।
বাংলাদেশে অনলাইনে লেনদেনের ভাল ব্যবস্থা নেই তাই কাজ করে কোন লাভ নেই:
  • হ্যা,কিছুটা ঠিক।বাংলাদেশে এখনও পে-পল নেই।বেশীরভাগ লেনদেনের কাজে পে-পল লাগে।তাই বলে কি কেউ বাংলাদেশে অনলাইনে ইনকাম করা থেকে বিরত আছে?
  • ফ্রিল্যান্সার মার্কেটপ্লেসগুলিতে কি বাংলাদেশীরা সুনামের সাথে উপার্জন করছে না?মনে রাখবেন সমস্যা যত বেশী সমাধান তার থেকে বেশী।
ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পেইড ডোমেইন-হোস্টিং দরকার:
  • ভাল আয় করার জন্য টাকা খরচ করতে হয়।নিজের কেনা ডোমেইন-হোস্টিং থাকলে উপকার বেশী।তারমানে এই নয় যে টাকা খরচ না করলে আয় করা সম্ভব নয়।সম্পূর্ন বিনামুল্যে সাইট তৈরি করে সেখান থেকে ইনকাম করা যায়।
  • বিভিন্ন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান সে ব্যবস্থাই করেছে।
ওয়েবসাইট বা ব্লোগে বেশী এড থাকলে বেশী আয়:
  • যারা adsense,chitika এরকম বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা থেকে অর্থ উপার্জন করেন বা করতে চান।তাদের ভিতর অনেকেই এ ভুল ধারনাটি পোষন করেন।এভাবে কখনও বেশী ইনকাম করা যায় না বরং income কমে যায় সেইসাথে সাইটের রেঙ্কিং এবং সুনামও বাধাগ্রস্থ হয়।

খরচ ছাড়া ভাল আয়:

  • কম খরচে বেশী আয় আশা করা যায় না।টাকা খরচ করেও নিজের ব্যবসাকে লাভবান করতে হয়।যেমন টাকা খরচ করে ডোমেইন-হোস্টিং কেনা,সাইটের পরিচিতি বাড়াতে বিজ্ঞাপন দেয়া ইত্যাদি।
নতুন সাইটের পরিচিতি বাড়াতে বিভিন্ন সফটঅয়্যারের ব্যবহার:
  • অনেকে সাইটের পরিচিতি বাড়ানোর জন্য ব্যাপক হারে এসইও করেন।বিভিন্ন থার্ড পার্টির সেবা গ্রহন করেন।এটা করা উচিত নয় সাইট ধীরে ধীরে জপ্রিয়তা পায় এটাই স্বাভাবিক।প্রচুর পরিমানে এসইও করলে সার্চ ইন্জিন আপনার সাইটকে ব্লাকলিস্টে বসাতে পারে।

কাজ শেখার ভাল ব্যবস্থা নেই:

  • আপনি যেহুতো কাজ করবেন অনলাইনে সেহুতো এর সমাধানও পাবেন অনলাইনে।খুব কঠিন কাজ না হলে সাধারনত কোন ট্রেইনিং সেন্টারে যেতে হয় না।অনলাইনে বহু দক্ষ লোক তার জ্ঞান শেয়ার করে থাকে।শেখার জন্য সেগুলোই অনেকটা সাহায্য করে। 
 

LEAVE A REPLY