bestearnidea.com

Online earning site will help you how to earn money

কিছু গুরত্বপূর্ণ পরামর্শ ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য

Share

ওয়েব ডিজাইন মানে হচ্ছে একটা ওয়েবসাইট দেখতে কেমন হবে বা এর সাধারন রূপ কেমন হবে তা নির্ধারণ করা। 

ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে আপনার কাজ হবে একটা পূর্ণাঙ্গ ওয়েব সাইটের টেম্পলেট বানানো।

যেমন ধরুন এটার লেয়াউট কেমন হবে।

হেডারে কোথায় মেনু থাকবে, সাইডবার হবে কিনা, ইমেজগুলো কিভাবে প্রদর্শন করবে ইত্যাদি।

ভিন্ন ভাবে বলতে গেলে ওয়েবসাইটের তথ্য কি হবে এবং কোথায় জমা থাকবে এগুলো চিন্তা না করে, তথ্যগুলো কিভাবে দেখানো হবে সেটা নির্ধারণ করাই হচ্ছে ওয়েব ডিজাইনার এর কাজ। আর এই ডিজাইন নির্ধারণ করতে ব্যাবহার করতে হবে কিছু প্রোগ্রামিং, স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ এবং মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ।

এইচটিএমএল এবং সিএসএস শিখবেন, নাকি পিএইচপি-রুবি শিখবেন।

শেখার জন্য কোন পথে যাবেন, ভিজুয়াল টুল ব্যবহার করবেন নাকি সরাসরি কোড লিখবেন।

এই বিষয়গুলি এতটাই দ্বন্দ্ব তৈরী করে যে কারো কারো বছর পেরিয়ে যায় সিদ্ধান্ত নিতে।

কারো পক্ষে কখনোই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় না। তারা সবকিছুই শিখব বলে ধরে নেন, কোনটাই শেখা হয় না। সময় গড়িয়ে যায়।

কিছু নিয়ম মেনে আপনি এই সমস্যার মোকাবেলা করতে পারেন। সত্যি বলতে কি, জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই এই নিয়ম কাজে লাগানো সম্ভব।

একটি বিষয় বেছে নিন
আপনি একসাথে ৫টি গান শোনেন না, একটি শোনার পর আরেকটি শোনেন। তেমনি আপনি সবকিছু একসাথে শিখতে পারেন না।

একটি একটি করে শিখতে হয়।

যদি ওয়েব ডিজাইন বিষয় হয়, প্রথমে এইচটিএমএল শিখুন। এটা যথেষ্ট পরিমান শেখার পর শুরু করুন সিএসএস।

তারপর জাভাস্ক্রিপ্ট বা অন্য যা কিছু শিখতে চান সেদিকে যান। একটি শেষ না করে অপরটিতে হাত দেবেন না।

সাধারণ পদ্ধতি ঠিক রাখুন
আপনি কোন প্রোগ্রাম ব্যবহার করবেন সেটা আপনার বিষয়, আপনার কাজ যখন ওয়েব ডিজাইন তখন ওয়েব ডিজাইনের মুল বৈশিষ্ট্য ঠিক রাখবেন।

কোড লেখার সময় যে ষ্টান্ডার্ডগুলি রয়েছে সেগুলি মানবেন। শুরুতে কিছুটা সমস্যা হলেও এক পর্যায়ে আপনি লাভবান হবেন

সুন্দর চেহারার বিষয়টি শেষে রাখুন
নতুন ওয়েব ডিজাইনারের প্রথম লক্ষ্য থাকে তিনি এমন আকর্ষণীয় কিছু করে দেখাবেন যেন অন্যরা তাকিয়ে থাকে।

এটা ভুল পথ। ওয়েব সাইটের ভালমন্দ এনিমেশন বা বিপুল গ্রাফিক্সের ওপর নির্ভর করে না।

বরং একেবারে  সহজ যে সাইটগুলি দ্রুত কাজ করে সেসব সাইটগুলো ভিজিটর পছন্দ করে।

এর ফলে অনেক সময় সাইটের মূল কাজ ও উদ্দেশ্য ব্যহত হয়। মূল কাজ শেষ করে তারপর তার সৌন্দর্য বাড়ানোর দিকে দৃষ্টি দিতে পারেন। এটা কখনোই মূল কাজ না।

পছন্দমত বিষয়গুলি সংগ্রহে রাখুন
ইন্টারনেট বিশাল জগত। সবসময়ই এমনকিছু পাবেন যা আপনাকে মুগ্ধ করতে পারে। পছন্দমত কিছু দেখলে তাকে নিজের ব্যবহারের জন্য রেখে দিন। ইন্টারনেটে বহু তৈরী কোড পাবেন যা ব্যবহার করে সময় এবং শ্রম দুইই বাচাতে পারেন।

যতটা সম্ভব তথ্য সংগ্রহ করুন
যত বেশি সম্ভব বই পড়ুন, টিউটোরিয়াল দেখুন, ভিডিও দেখুন, অনলাইন আর্টিকেল পড়ুন। সবসময়ই সেখানে শেখার মত নতুন কিছু পাবেন। সাথে আমিও আছি আপনার জন্য!

সঠিক সফটঅয়্যার ব্যবহার করুন
আপনি যে সফটঅয়্যার ব্যবহার করছেন সেখানে কি আপনি স্বাচ্ছন্দবোধ করেন? বিষয়টি ব্যক্তির ওপর নির্ভরশীল। আপনি হয়ত নোটপ্যাড ++ ব্যবহারে স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন, আরেকজন ব্যবহার করতে পারেন অন্য কোন টেক্সট এডিটর। আপনার হয়ত ফটোশপ পছন্দ, আরেকজনের পছন্দ ফায়ারওয়ার্কস। আপনি নিজে যেখানে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন সেটাই ব্যবহার করুন, অন্যকে দেখে অনুকরণ করবেন না।

কাজ শুরু করুন
আপনার সবকিছুই নির্ভর করছে শুরু করার ওপর। আপনি যাত্রা করে তবেই গন্তব্যে পৌঁছাতে পারেন, সময় যতই লাগুক। যাত্রা না করে বসে চিন্তা করলে আপনার গন্তব্যে পৌছানোর কোন সম্ভাবনা নেই। আশ্চর্যজনকভাবে এই বৈশিষ্ট্য বহু ব্যক্তির মধ্যে দেখা যায়। করব-করছি একথা বলেই মাস-বছর পেরিয়ে যায়।

যদি সত্যিই কিছু করতে চান কাজে হাত দিন। সামান্য একটুখানি করে হলেও করতে থাকুন। আশা করি  সাথে থাকবেন আগামী পরামর্শ দেওয়া পর্যন্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

';
Share
Share